Home / News / ফেসবুকে নিজের করোনা শনাক্তের খবর দিলেন যমুনা টিভির সাংবাদিক

ফেসবুকে নিজের করোনা শনাক্তের খবর দিলেন যমুনা টিভির সাংবাদিক

ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে নিজের করোনা শনাক্তের খবর জানালেন যমুনা টেলিভিশনের জ্যেষ্ঠ এক সাংবাদিক। 

শুক্রবার ( ১০ এপ্রিল) সকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনি এ কথা জানান।

বর্তমানে তিনি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন।

ফেসবুক পোস্টে ওই সাংবাদিক জানান, তিনি ও তার শ্বশুর দুজনেরই করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তার অবস্থা কিছুটা ভালো হলেও শ্বশুর বেশ অসুস্থ। সবার কাছে তাদের সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছেন এ সাংবাদিক। একই সঙ্গে তার পরিবারের সবার করোনা শনাক্তকরণের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। 

ফেসবুকে নিজের করোনা শনাক্তের খবর দিলেন যমুনা টিভির সাংবাদিক

এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ এপ্রিল) যুমনা টেলিভিশনের অ্যাসাইনমেন্ট এডিটর রোকসানা আঞ্জুমান নিকোল এক সংবাদকর্মীর করোনা ভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার খবর সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় টেলিভিশনটির আরও ৩৪ জন সংবাদকমীকে সেলফ আইসোলেশনে থাকার নির্দেশ দিয়েছে টেলিভিশন কর্তৃপক্ষ।

তিনি আরও বলেন, করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সংবাদকর্মী খালেদা জিয়ার মুক্তির অ্যাসাইনমেন্ট কভার করে ১৫ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন। এরপর তিনি একদিন অফিস করে একদিনের ছুটি নেন তার শ্বশুরের করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করানোর জন্য। তার শ্বশুরকে পরীক্ষা করাতে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তারও পরীক্ষা করানোর পরামর্শ দেন। পরীক্ষা করে দুজনেরই কোভিড-১৯ পজিটিভ পাওয়া গেছে।

এর আগে গত ৩ এপ্রিল ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের এক সংবাদকর্মী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও একজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনা ভাইরাসে মোট মৃতের সংখ্যা ২১। নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১১২ জন। নতুন শনাক্তদের মধ্যে ৭০ জন পুরুষ এবং ৪২ জন নারী। এ নিয়ে দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৩৩০ জন।

বৃহস্পতিবারের সংবাদ ব্রিফিংকে আইইডিসিআরের পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় যাদের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে, তাদের বেশিরভাগ ঢাকা শহরের। ঢাকা শহরে শনাক্ত হয়েছেন ৬২ জন। এরপর ১৩ জন রয়েছেন নারায়ণগঞ্জের। আমরা ইতোমধ্যেই নারায়ণগঞ্জকে হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করেছি। সেখানে বিশেষ পদক্ষেপ নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, যদিও বিভিন্ন জায়গায় রোগী পাওয়া যাচ্ছে। বিভিন্ন জেলায় রোগী শনাক্ত হচ্ছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রে দেখা যাচ্ছে, আগে যে ক্লাস্টারগুলো চিহ্নিত করা হয়েছিল যেমন—নারায়ণগঞ্জ, অনেক জেলাতেই যখন রোগী চিহ্নিত করেছি, তখন জানা গেছে যে, তারা নারায়ণগঞ্জ থেকে গেছেন।

About Abdullah

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *