Home / News / করোনার লক্ষণ নিয়ে হাসপাতাল থেকে পালানো রোগীর মৃত্যু

করোনার লক্ষণ নিয়ে হাসপাতাল থেকে পালানো রোগীর মৃত্যু

দিনাজপুরের বিরামপুরে করোনাভাইরাস লক্ষণ নিয়ে এক যুবকের (৩৫) মৃত্যু হয়েছে। করোনা সন্দেহে মৃত ব্যক্তিসহ তার পরিবারের পাঁচ জনের শরীরের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। এই ঘটনায় ওই এলাকার ২৩টি বাড়ির ৭৪ জন সদস্যকে হোমকোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে।

করোনার লক্ষণ নিয়ে হাসপাতাল থেকে পালানো রোগীর মৃত্যু

মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) সকালে নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়। 

এর আগে মৃত ওই ব্যক্তিকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করতে চাইলে তিনি হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান।

সোমবার দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি। করোনার লক্ষণ নিয়ে তার মৃত্যুর ঘটনায় দিনাজপুরের সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল কুদ্দুছ  নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মৃত্যুর সময় তার শরীরে করোনার লক্ষণ ছিল। দিনাজপুর থেকে ১টি টিম নিহতসহ ওই পরিবারের সদস্যদের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট পেলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে তার শরীরে করোনা আছে কি না।

জানা গেছে, রোববার (১২ এপ্রিল) ওই ব্যক্তি কাশীসহ বিভিন্ন রোগ নিয়ে দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। সোমবার (১৩ এপ্রিল) হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে আইসোলেশনের থাকার পরামর্শ দেন। কিন্তু তার পরিবারের লোকজন তাকে আইসোলেশনে রাখতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে মঙ্গলবার সকালে তার নিজ বাসভবনে মৃত্যু হয়।

বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: সোলায়মান হোসেন মেহেদি বলেন, করোনাভাইরাস সন্দেহে মৃত ব্যক্তিসহ তার পরিবারের ৫জন সদস্যের  নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে উপজেলা প্রশাসন মৃত্যু ব্যক্তির বাড়িসহ ওই এলাকার ২৩টি বাড়ির মোট ৭৪ জন সদস্যকে হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকতে নির্দেশ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ আব্দুল কুদ্দুস জানিয়েছেন, ১২ এপ্রিল ওই ব্যক্তি কাশীসহ বিভিন্ন রোগ নিয়ে দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। তাকে চিকিৎসকরা আইসোলেশসন ওয়ার্ডে ভর্তির জন্য সুপারিশ করে। কিন্তু তার আত্মীয় স্বজনরা সেখানে না নিয়ে রাতে পালিয়ে যায়।

তিনি জানান, আজ দুপুরে তার এবং পরিবারের রক্তের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

About Abdullah

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *